Vivo V20 ফটোগ্রাফি প্রেমিদের প্রথম পছন্দ

সম্প্রতি কিছু দিন আগে এক অনলাইন ইভেন্টের মাধ্যমে ভিভো তাদের কাঙ্খিত ডিভাইস Vivo V20 জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে লঞ্চ করে। ভিভোর লঞ্চ করা নতুন Vivo V20 স্মার্টফোনটি তৈরি করা হয়েছে অত্যান্ত প্রিমিয়াম লুকে। ডিভাইসটির গুরুত্বপূর্ণ কিছু ফিচারের কথা বলতে গেলে প্রথমেই আলোচনা করতে হয় এর থিকনেস নিয়ে। ডিভাইসটি এতটাই স্লিম যে এর থিকনেস ৭.৩৮ মিলিমিটার। ভিভো ভি ২০ এর আর একটি গুরুত্বপূর্ণ স্মার্ট ফিচার হচ্ছে এর "অটো আইফোকাস" প্রযুক্তি। টেকনোলোজিটি কোন চলমান অবজেক্ট কে নিজে থেকেই ফোকাস করে নিতে পারবে। স্মার্টফোনটির ক্যামেরাটিতে আপনি একই সময় সামনে এবং পেছনে ভিডিও করতে পারবেন। 


ফটোগ্রাফি তে এক ধাপ এগিয়ে :


Vivo V20 ডিভাইসটিতে সবচাইতে বেশি ফোকাস করা হয়েছে এর ক্যামেরার দিকে। স্মার্টফোনটির সামনে দেওয়া হয়েছে 44 মেগাপিক্সেলের শক্তিশালী ক্যামেরা। যার অ্যাপার্চার এফ ২.০। "অটো আইফোকাস" সেন্সরটি দেওয়া হয়েছে ডিস্পেলের উপরে নচের ভেতরে। সুপার নাইট মোডের পাশাপাশি স্লো মোশান ভিডিও সহ আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফিচার যোগ করা হয়েছে সেল্ফি ক্যামেরাতে। 

Vivo V20 স্মার্টফোনটিতে ফটোগ্রাফি প্রেমিদের জন্য এর ব্যাক সাইটে ট্রিপল ক্যামেরা সেট আপ দেওয়া হয়েছে। ডিভাইসটির রেয়ারে মেইন ক্যামেরা হিসাবে দেওয়া হয়েছে f/1.8 অ্যাপার্চারযুক্ত 64 মেগাপিক্সেলের একটি ক্যামেরা। এছাড়াও দেওয়া হয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াড ক্যামেরা এবং ২ মেগাপিক্সেলের মনোক্রোম ক্যামেরা। 


Vivo V20 স্মার্টফোনের অন্যান্য স্পেসিফিকেশন : 


Vivo V20 ডিভাইসটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 6.44 ইঞ্চির ফুল এইসডি+ এমোলেড ডিস্পেলে। যার পিক্সেল রেজলিউশন 1080 × 2400। সিকিউরিটি হিসাবে থাকছে ইন ডিস্পেলে ফিঙ্গারপ্রিন্ট। এছাড়া ফোনটিতে স্ক্রিন প্রটেকশন হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে গোরিলা গ্লাস থ্রি। ডিভাইসটি 7.38 মিলিমিটার পাতলা হবার কারনে এর ওজন মাত্র 171 গ্রাম। Vivo V20 স্মার্টফোন টিতে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যানড্রয়েড অপরেটিং সিস্টেম 11। ডিভাইসটিতে প্রসেসর হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগনের 8 ন্যানোমিটার এর 720G অক্টাকোর প্রসেসর। যার ক্লক স্পীড 2.3 গিগাহার্জ। এছাড়া গ্রাফিক্স হিসাবে থাকছে অ্যাড্রিনো 618 জিপিইউ। 


Vivo V20 স্মার্টফোনটিতে দেওয়া হয়েছে ডুয়েল সিমের সুবিধা। যার একটিতে 4জি আছে ভোএলটিই সাপোর্ট। 

ফোনটিতে বিভিন্ন ব্যাসিক ফিচারের সাথে দেওয়া হয়েছে ৩.৫ এম এম হেডফোনের সুবিধা। স্মার্টফোনটিতে সিকিউরিটির জন্য দেওয়া হয়ে ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার ও ফেস আনলকের সুবিধা। ডিভাইসটি ব্যাকআপের জন্য ব্যবহার করা হয়েছে ৪০০০ এ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি। সাথে থাকছে ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্যার। 


Vivo V20 কি আপনার জন্য : 


স্মার্টফোন টি ফোটোগ্রাফি প্রেমিদেরকে টার্গেট করে বাজারে আনা হয়েছে। তবে ৮ ন্যানোমিটারের 730g প্রসেসর দিয়ে মোটামুটি ভাবে গেম খেলতে পারবেন। আপনার সাধারন ইউজেজ এ এটা কোনো প্রভাব ফেলবে না।  অর্থাৎ আপনি যদি ফোটোগ্রাফি প্রেমি হন কোনো চিন্তা ছাড়াই ডিভাইসটি কিনতে পারেন।

Post a Comment

0 Comments