ইউটিউবেই করা যাবে কেনাকাটা


আমাজন বা আলিবাবা ই-কমার্স বা পণ্য কেনাকাটার জন্য বিশ্বব্যাপী বিখ্যাত। প্রতিদিন এসব প্ল্যাটফর্ম থেকে লক্ষ লক্ষ পণ্য ক্রয়-বিক্রয় হয়ে থাকে। এবার ই-কমার্সের এই তালিকাতে যুক্ত হতে যাচ্ছে ইউটিউব। হয়তো খুব শিগ্রই ইউটিউবে পণ্য কেনাকাটার সুবিধা চালু হতে যাচ্ছে। গুগল তাদের অন্যতম প্ল্যাটফর্ম ইউটিউবে ই কমার্স সুবিধা চালু করবে। এ সুবিধা চালু হলে সাধারণ মানুষ ইউটিউবে ভিডিও দেখার পাশাপাশি পণ্য কেনাকাটাও করতে পারবেন।


নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইউটিউবের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন আমাজন, আলিবাবা বা অন্য কোন ওয়েবসাইটের মতো ইউটিউব থেকেও সরাসরি পণ্য ক্রয় করা যাবে। ইউটিউবের এই কর্মকর্তা পণ্য কেনাবেচা উদ্যোগের সাথে সরাসরি জড়িত। ইউটিউব তাদের এ সুবিধা চালু করতে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম শপিফাইয়ের সাথে কাজ করছে বলে জানা যায়।


সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গকে ইউটিউবের এক কর্মকর্তা তাদের এই উদ্যোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে ইউটিউব আপাতত অল্পকিছু সংখ্যক ভিডিও চ্যানেলে নতুন এই বিষয়টি পরীক্ষামূলক গবেষণা চালাবে। ইউটিউবের মুখপাত্রের কাছ থেকে এর বেশি কিছু জানা সম্ভব হয়নি।


যদি কোনো চ্যানেলে এই সুবিধাটি চালু করতে চাই তবে ভিডিও আপলোড কারি চ্যানেলকে ভিডিও আপলোডের সময় যে পন্যটি বিক্রি করতে চাই সে পণ্যটিকে উল্লেখ করতে হবে। তথ্যগুলো কে কেনাকাটার সুবিধায় ব্যবহার করা হবে। ইউটিউব একই ধরনের পণ্যকে এসব তথ্যের মাধ্যমে একরকম ক্যাটালগে পরিনত করবে।
এ সুবিধা চালু হলে ইউটিউব নতুন করে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে। অর্থাৎ তাদের মূল আয়ের উৎম হবে ই-কমার্স সেবা।


ইউটিউব তাদের এই নতুন প্লাটফর্ম থেকে কীভাবে আয় করবে, সে তথ্য এখনও সঠিকভাবে জানা যায়নি। তবে কিছু কিছু ইউটিউব চ্যানেলে কিছু দেশে কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের সাবস্ক্রিপশন নির্ভর ভিডিও শেয়ার করার সুবিধা দিয়েছে। এসব ইউটিউব চ্যানেলের আয়ের ৩০ শতাংশ কেটে রাখছে ইউটিউব।


করোনা মহামারিতে বিজ্ঞাপন দাতা প্রতিষ্ঠানগুলো গুগলে পূর্বের তুলনায় বিজ্ঞাপন কম দিচ্ছে। তবে করোনা পরিস্থিতিতে অন্য প্রতিষ্ঠানের চাইতে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যবসা অনেক ভালো ছিলো। এছাড়া ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক ই-কমার্সের জন্য নতুন কিছু সুবাধা আনলেও গুগল কোনো ধরনের সুবাধা আনতে পারিনি। এবার হয়তো এই অবস্থা থেকে সম্পূর্ন ঘুরে দাড়াবে মার্কিন এই প্রতিষ্ঠানটি।


অনেকদিন থেকেই ইউটিউবের ই-কমার্স বিষয় নিয়ে গুগলের নির্বাহীরা বিভিন্ন ইঙ্গিত দিয়ে আসছিলো।
ইউটিউবের এক নির্বাহী পিচাই বলেছেন, আপনারা ইউটিউবে অনেক পণ্যের আনবক্সিং দেখেন হয়তো খুব তাড়াতাড়ি এগুলো আপনারা এখান থেকে কিনতে পারবেন।


অতএব বোঝাই যাচ্ছে গুগল তাদের ই-কমার্স সুবিধা খুব শিগ্রই চালু করতে যাচ্ছে। এখন দেখার বিষয় যে তারা আলিবাবা কিংবা অ্যামাজন এর মতো আন্তর্জাতিক ভাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করেতে পারে কিনা।
আপনার কি মতামত গুগল কি পারবে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান হিসেবে সফল হতে। আপনার মতাতম অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন।

আমাদের অনুপ্রাণিত করতে
বন্ধুদের মাঝে নিউজটি শেয়ার করুন
ধন্যবাদ

Post a Comment

0 Comments