ইউটিউবে চ্যাট করে আয় করুন

অনলাইনে যে আয় করা যায় এটা আমরা সকলেই জানি। অনেকে অনেক ধরনের কাজ করে প্রতিদিন অনলাইন থেকে অনেক বেশি অর্থ আয় করছে। তবে চ্যাট করে অর্থ উপার্জনের কথা হয়তো কখনও জানতে পারেননি। হ্যাঁ চ্যাট করে অর্থ উপর্জন। আর এই চ্যাটের মাধ্যমে অর্থ উপার্যনের সুযোগ করে দিচ্ছে ইউটিউব। আর ইউটিউবের এই ফিচারটির নাম "সুপার চ্যাট"। হয়তো অনেকেই এই "সুপার চ্যাটের" নাম শোনেননি। ইউটিউবের এই "সুপার চ্যাট" ফিচারটির মাধ্যমে খুব সহজেই আয় করা সম্ভব। আপনারা সকলে জানেন ইউটিউবে লাইভ করা যায়। আর এই লাইভে যুক্ত করা হয়েছে সুপার চ্যাট ফিচারটি। লাইভ চলাকালিন কোন দর্শক লাইভে কমেন্ট করতে হলে অর্থ পরিশোধ করা লাগবে। আর দর্শকদের এই অর্থগুলো যিনি লাইভ করছেন তিনি পাবেন।

ইউটিউব লাইভে যেকোনো দর্শক কমেন্ট করতে পারে। কিন্তু লাইভে এত বেশি পরিমাণ কমেন্ট করা হয় যে সবগুলো কমেন্ট লাইভ করা ব্যক্তিটির নজরে আসা সম্ভব না। কিন্তু যদি কোনো দর্শক এই সুপার চ্যাটের মাধ্যমে অর্থের বিনিময়ে কমেন্ট করে তবে খুব সহজেই সেই কমেন্টটি লাইভে আসা ব্যক্তিটির আলাদা ভাবে নজরে আসবে। সুপার চ্যাটের মাধ্যমে করা কমেন্টটি পিন হয়ে থাকবে এবং সেটির রং ও হবে ভিন্ন। ফলে কমেন্টগুলি খুব সহজেই কনটেন্ট ক্রিয়েটরের সামনে চলে আসবে। তবে সব বয়সের ব্যক্তিরা এই ফিচারটি ব্যবহার করতে পারবে না। ফিচারটি ব্যবহার করতে হলে ব্যবহারকারীর বয়স ১৮ বছরের ওপরে হতে হবে।
এই ফিচারটি ইউটিউব চালু করে ২০১৭ সালের প্রথম দিকে। তবে হতাশার বিষয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফিচারটি চালু হলেও বাংলাদেশে এখনও এই সুযোগটি চালু হয়নি। তবে আমাদের পাশের দেশ ভারতে অনেক আগেই ইউটিউব এই ফিচারটি চালু করে দিয়েছে। অর্থ উপার্জনের মাধ্যম হিসাবে বর্তামানে বিভিন্ন দেশে এই ফিচারটি অনেক জনপ্রিয়। দর্শকরা "সুপার চ্যাটের" মাধ্যমে অর্থ দিতে চাইলে তাকে অবস্যই ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে হবে। অন্যদিকে যিনি এই ফিচারটির মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে চাইবে তাকে অবস্যই নির্দিষ্ট অঞ্চলের বাসিন্দা হতে হবে এবং বয়স হতে হবে ১৮ বছরের উর্ধে। তবে 'মেড ফর কিডস', 'প্রাইভেট' ও 'এজ রেস্ট্রিক্টেড' এর ক্ষেত্রে এই ফিচারটি ব্যবহার যোগ্য নয়।

"সুপার চ্যাট" ফিচারটি যেভাবে কাজ করে:

যখন কোন ব্যক্তি বা কনটেন্ট ক্রিয়েটর লাইভে আসবে তখন দর্শক হিসেবে আপনি চ্যাট উইন্ডোর এক পাশে ডলার সিম্বল দেখতে পাবেন। এই সিম্বলে বা চিহ্নে ক্লিক করে লাইভে আসা কনটেন্ট ক্রিয়েটরকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ দিয়ে কমেন্ট করতে পারবেন এবং আপনার কমেন্টটি সবার উপরে থাকবে। আপনার কমেন্টির কালার ও ভিন্ন হবে এবং সেটা পিন করা থাকবে। ফলে লাইভে আসা ব্যক্তিটি সহজে আপনার কমেন্টটি দেখতে পারবে।
অন্যদিকে লাইভে আসা কনটেন্ট ক্রিয়েটর "সুপার চ্যাট" ফিচারটিতে ক্লিক করলে অর্থের বিনিময়ে করা সব কমেন্টগুলি আলাদাভাবে দেখতে পাবে। যার কারণে খুব সহজে কমেন্টগুলির উত্তর দেওয়া যাবে। তবে এমনটি নয় যে অর্থের বিনিময়ে করা কমেন্টগুলির উত্তর অবস্যই দিতে হবে। এটা সম্পূর্ণ কনটেন্ট ক্রিয়েটরের নিজের মতের উপর নির্ভর করে।

"সুপার চ্যাটের" মাধ্যমে করা কমেন্টগুলি কত সময় পিনড থাকবে সেটা নির্ভর করে আপনার পরিশোধ করা অর্থের উপর। আপনি যত বেশি অর্থ বিনিময় করবেন আপনার কমেন্টটি তত বেশি সময় পিনড থাকবে। তবে আপনি চাইলেও লাইভে সব ধরেনের কমেন্ট করতে পারবেন না। কারণ লাইভে আসা ব্যক্তিটি কিছু কি-ওয়ার্ড ব্লাকলিস্টে রাখতে পারে। আর সেই সব কি-ওয়ার্ড আপনি চাইলেও কোনোভাবে ব্যবহার করতে পারবেন না।

"সুপার চ্যাট" থেকে অর্জিত অর্থ কে পাবেন? :
ইউটিউবের নিয়ম অনুযায়ী সুপার চ্যাটের মাধ্যমে পাওয়া অর্থের বেশিরভাগ অর্থ লাইভ করা ব্যক্তি বা কনটেন্ট ক্রিয়েটর পাবেন। যারা ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করতে চান তাদের জন্য এটি অন্যতম একটি ফিচার। তবে স্বাভাবিক ভাবেই "সুপার চ্যাট" থেকে আয় করা কিছু অর্থ ইউটিউব কর্তৃপক্ষ নিয়ে থাকে।

বাংলাদেশে কবে চালু হবে ফিচারটি :
বাংলাদেশে কবে নাগাদ ফিচারটি চালু হবে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায় নি। তবে প্রযুক্তি সংশ্লিষ্টগণ ধারনা করছেন হয়তো খুব তাড়াতাড়ি বাংলাদেশে ফিচারটি চালু হতে পারে। ফিচারটি চালু হলে বাংলাদেশের ইউটিউবাররা নতুন করে আরও বেশি পরিমাণ আয় করতে পারবে।
আমাদের অনুপ্রাণিত করতে
বন্ধুদের মাঝে নিউজটি শেয়ার করুন
ধন্যবাদ

Post a Comment

0 Comments