Header AD

নীলগিরি, বান্দরবন - মেঘেদের খেলাঘর

 নীলগিরিমেঘলাচিম্বুক…!

নীলগিরি বান্দরবান জেলা শহর থেকে ৪৭ কি.মি. দখিনপূর্ব দিকে লামা উপজেলার একঅংশে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২২00 ফুট উপরে বাংলাদেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র নীলগিরির অবস্থান। যাকে বাংলাদেশের দারজেলিং হিসেবে অবহিত করা যায়।

নীলগিরি, বান্দরবন 

নীলগিরিতে পাহাড় আর মেঘের মিতালি চলে দিনে রাতে সবসময়। আপনিও ঘুরে আসতে পারেন ঐ নীলগিরি মেঘের দেশে। তবে যারা মেঘভালোবাসেন তারা নীলগিরিতে বর্ষাকালে ভ্রমণে গেলে বেশি মজা পাবেন। কারর মেঘ তখন আপনা -আপনিই  আপনার হাতে ধরা দিয়ে যাবে।

নীলগিরির সৌন্দর্য আপনাকে মুগ্ধ করবে। নীলগিরি পর্যটনকেন্দ্রটি বাংলদেশ সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রণ করে।এখানে থাকা -খওয়ার জন্য অনেকগুলো কটেজ ও হোটেল মোটেল রয়েছে। এগুলোর পরিবেশ খুবই সুন্দর।যা দেখে আপনার ভাল লাগবে।

কিভাবে যাবেন

আপনি নীলগিরি যেতে চাইলে আপনকে প্রথমে বান্দরবান জেলা শহরে যেতে হবে তারপর ওখান থেকে জিপগাড়িতে করে নীলগিরি যেতে হবে। ওখানে গাড়ি থেকে নামলেই নীলগিরি পর্যটন স্পট।

মেঘলা

নাম মেঘলা হলেও মেঘের সাথে মেঘলা পর্যটন স্পটের কোন সম্পর্ক নেই . বান্দরবান জেলাশহরে প্রবেশের ৭কি.মি. আগেই মেঘলাপযাটন স্পটটি অবস্থিত।এটি সুন্দর কিছু ছোটবড় অনেকগুলো পাহাড়বেষ্টিত এক টরলেককে ঘিরে গড়েউঠে।

আশেপাশে ঘন সবুজগাছ আর লেকের স্বচ্ছপানি পর্যটকদেরকে প্রকৃতির কাছে টানে প্রতিনিয়ত।লেকের পানিতে রয়েছে যেমন হাঁসের প্যাডেলবোট,তেমনি ডাঙ্গায় রয়েছে মিনি চিরিয়াখানা, আর আকাশে ঝুলেআছে রোপওয়েকার। এখানে সবুজপ্রকৃতি, লেকের স্বচ্ছপানি,আর পাহাড়ের চুড়ায় চড়ে দেখতে পারবেন পাহাড়ি বান্দরবানের নয়নভীরামদৃশ্য,মেঘলা পযাটন স্পটের পাশেই রয়েছে  বাংলদেশ পযটন করপোরেশনের বান্দরবান পযটন হোটেল।
নীলাচল
নীলাচল  বান্দরবান  শহর হতে ১০ কি;মি; দক্ষিণে ১৭০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত একটি পর্বত শীর্ষ। যেখান থেকে নীল আকাশ যেন তার নীল আচল বিছিয়ে দিয়েছে ওখান কার ভূমির সবুজ জমীনে। যে দিকে দু চোখ যায় সে দিকেই সবুজ আর নীল আকাশের হাতছানি। মুগ্ধতায় ভরে ওঠে সবার মন প্রাণ।







শৈল প্রপাত 
শৈল প্রপাত বান্দরবান শহর হতে ৭ কি;মি; দক্ষিণ – পূর্বে চিম্বুক বা নীলগিরি যাওয়ার পথে আপনি দেখতে পাবেন। এটি ও একবার দেখলে আপনার বার বার দেখতে মন চাইবে। কারণ এটি এক অন্য রকম সুন্দর।(৩১৮)

মিলনছড়ি
মিলনছড়ি বান্দরবান শহর হতে ৩ কি;মি; দখিন-পূর্বে শৈল প্রপাত বা চিম্বুক যাওয়ার পথে দেখা যায়। এখানে একটি বাংলাদেশ পুলিশের ফাঁড়ি রয়েছে। পাহাড়ের অতি উচ্চতায় রাস্তার ধাঁরে দাঁড়িয়ে পূর্ব প্রান্তে অবারিত সবুজের খেলা এবং সবুজ প্রকৃতির  বুক চিড়ে সর্পিল গতীতে বয়ে গেছে সাঙ্গু নামক মহনীয় নদীটি।

চিম্বুক
চিম্বুক বান্দরবানের সবচেয়ে পুরাতন পর্যটন স্পট। বান্দরবান শহর হতে ২১ কি;মি; দক্ষিণ – পূর্বে মিলনছড়ি এবং শৈ্ল প্রপাত পার করে চিম্বুক যেতে হয়। এখানে পাহাড়ের চুড়ায় রেস্টুরেন্ট ও একটি ওয়াচ টাওয়ার রয়েছে। পাহাড়ের চুড়া থেকে চারদিকের সবুজ প্রকৃ্তির সৌন্দর্যের অবগাহন এখানে প্রকৃতি প্রেমীদের টেনে নিয়ে আসে।

Post a Comment

Post a Comment (0)

Previous Post Next Post

ads

Post ADS 1

ads

Post ADS 1